হেলথ ইন্সুরেন্স নেওয়ার সঠিক বয়স কত? কেউ আপনাকে বলবে না

Health Insurance: ভারতে করণা মহামারীর পর মানুষ অনেক স্বাস্থ্য সচেতন হয়ে উঠেছে। সবাই স্বাস্থ্য বীমা করার দিকে আগ্রহ দেখাচ্ছে। প্রতিদিন নিত্যনতুন রোগ ও জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় রোগের চিকিৎসার খরচ ও মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে নিজেকে সুরক্ষিত রাখার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো স্বাস্থ্য বীমা। 2020-21 সালে অর্থবর্ষে স্বাস্থ্য বীমার রিটেল বিক্রি 28.5 শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

দেশে এমন অনেক মানুষ আছেন যারা এখনো স্বাস্থ্য বীমার উপকারিতা সম্পর্কে অবগত নন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে দেখা গেছে যে 40 বছরের উর্ধ্বে যাদের বয়স তারাই স্বাস্থ্যবীমা করান। কিন্তু যদি আপনি অল্প বয়সে ইন্সুরেন্স নেন তাহলে অনেক সুযোগ-সুবিধা পাবেন। নিচে এই সমস্ত সুযোগ সুবিধা গুলো নিয়ে আলোচনা করব।

হেলথ ইন্সুরেন্স অল্প বয়সে কেন করাবেন

যদি আপনি 24 বছর বয়সে হেলথ ইন্সুরেন্স করান তাহলে আপনাকে ইন্স্যুরেন্সের প্রেমিয়াম কম দিতে হবে। স্বাস্থ্য বীমার প্রিমিয়াম বীমাকারীর বয়সের উপর নির্ভর করে। বয়স যত বাড়বে স্বাস্থ্য বীমার প্রিমিয়াম ততো বাড়বে। কারণ বয়স বাড়ার সাথে সাথে শরীরের নানান রকম স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা দেখা দেয়।

কম ওয়েটিং পিরিয়ড

ওয়েটিং পিরিয়ড স্বাস্থ্য বীমার একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক এটার ব্যাপারে জানা প্রয়োজন। এই ওয়েটিং পিরিয়ডের কারণে 50 শতাংশেরও বেশি প্রিমিয়াম বাতিল করে দেয়া হয়। ওয়েটিং পিরিয়ডের মধ্যে আপনাকে একটি রোগের কভারের জন্য কিছুদিন অপেক্ষা করতে হয় দুই থেকে চার বছর এর পরে আপনাকে ইনস্যুরেন্স ক্লেম দেয়া হয়। স্বাস্থ্য বীমা করার সময় ওয়েটিং পিরিয়ড নির্বাচন করতে পারেন। আর আপনি যদি 23-24 বছর বয়সে স্বাস্থ্যবীমা করান তাহলে কম ওয়েটিং পিরিয়ডে স্বাস্থ্যবীমা পেয়ে যাবেন।

ট্যাক্সে ছাড়া

ইন্স্যুরেন্সের ট্যাক্স ছাড় নেওয়ার জন্য আপনি হেলথ ইন্সুরেন্স করাতে পারেন।Income Tax Act, 1961, 80D অনুযায়ী। ভারতের স্বাস্থ্য বীমার উপর ট্যাক্স ছাড়ের ব্যবস্থা আছে। যত অল্প বয়সে করাবেন তাতো বেশি ছাড় পাবেন।

Leave a Comment