Bitcoin কি ? বিটকয়েন কোন কোন দেশে বৈধ ও কিভাবে কাজ করে 2022

পুরনো যুগে যখন ব্যাংক ছিলনা তখন ব্যবসায়ী ও পাইকারিরা লেনদেনে টোকেন ব্যবহার করত | টোকন একটি প্রমাণপত্র যা দিয়ে জিনিসপত্র কেনা ও বেচা যেত এটি একটি কাগজে লিখিত পত্র যা কাউকে অর্থ হিসাবে দেওয়া যেত |

তারপর, ব্যাংক আসার ফলে এই নীতিটিকে বাদ দেওয়া হয় এরপর ২০০৯ সালে ডিজি ক্যাশ নামে Bitcoin ডিজিটাল কারেন্সি তৈরি হয় অনেক কোম্পানি লেনদেনে টাকার বদলে বিটকয়েন কে গ্রহণ করছেন এর সুবিধা হল অল্প সময়ে বিশ্বের যেকোনো জায়গায় অর্থ ট্রানজেকশন করা সম্ভব |


পিয়ার-টু-পিয়ার মানি ট্রানজেকশন জন্য বড় বড় কোম্পানি বিটকয়েন কে ব্যবহার শুরু করে এর ফলে বিটকয়েনের জনপ্রিয়তা বেড়ে যায় |

বিটকয়েন কি ? ( What is Bitcoin in Bengali )

ইতিহাস, বিটকয়েন পৃথিবীর সর্বপ্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সি যেটিকে সাতোশি নাকামোতো নামক ব্যক্তি জাপানের স্থায়ী বাসিন্দা বলে দাবি করা হচ্ছে । সাতোশি ছদ্মনামে কোন গোষ্ঠী বা গ্রুপ এই ক্রিপ্টো কারেন্সীটি আবিষ্কার করেন ২০০৯ সালে | যা, পিয়ার টু পিয়ার পদ্ধতির মাধ্যমে কাজ করে থাকে।


আবার অনেকে একে ভার্চুয়াল কারেন্সি , গুপ্ত মুদ্রা , ডিজিটাল মানি বলে ব্যবহার করে থাকি | ২০১০ সালে সাতোশি নাকামোতো বিটকয়েনের User ID ও পাসওয়ার্ড ( সফটওয়্যার ওয়ালেট যেখানে বিটকয়েন সংরক্ষিত থাকে ) তার কোড গুলিকে গ্যাভিন অ্যান্ড্রেসন নামে সফটওয়্যার ডেভলপার কে ট্রানস্ফার করেদেন। এরপর থেকে সাতোশি নাকামোতো কে আর কেউ দেখতে পায়নি উধাও হয়ে যান।
বিটকয়েন একটি ডিজিটাল মানি একে আমরা হাতে ও পকেট এ ধরে রাখতে পারি না কেবল অনলাইনের মাধ্যমেই কিনতে ও লেনদেনে ব্যবহার করতে পারি |
অনেকেই বিটকয়েন কে ফিউচার মানি বলে থাকে |


বিটকয়েনের টোটাল সাপ্লাই সংখ্যার পরিমাণ = ২১ মিলিয়ন এর থেকে বিটকয়েনের সংখ্যাকে বাড়ানো যাবেনা |
বর্তমানে এর মধ্যে নব্বই পার্সেন্ট বিটকয়েন কে মাইন করা হয়েছে |
একটি বিটকয়েন খন্ড খন্ড করে ভাগ করলে ১০০ মিলিয়ন বা ১০ কোটি সাতোশি পাওয়া যাবে বিটকয়েন আমরা কেবল অনলাইন ওয়ালেট এর মাধ্যমে দেখতে ও জমা করে রাখতে পারি ২০০৯ সাল থেকে ২০১০ সালের মধ্যে ১টি বিটকয়েনের মূল্য ছিল প্রায় ১ ডলার থেকে কম | এরপর ২০১২-২০১৩ সাল থেকে বিটকয়েন এর মান অসামঞ্জস্য হারে বৃদ্ধি পায় |

১টি বিটকয়েন সমান কত টাকা ?


সব দেশে ভিন্ন ভিন্ন মান দেখতে পাওয়া যায়
আজকে আমরা ভারত ও বাংলাদেশর বিটকয়েনের মূলকে আলোচনা করলাম |


বর্তমান ভারতের ১ টি বিটকয়েনের মূল্য

bitcoin

বর্তমান ভারতের ১ টি বিটকয়েনের মূল্য


এবং বর্তমানে বাংলাদেশের ক্ষেত্রে ১ টি বিটকয়েনের মূল্য

বিটকয়েন কোন কোন দেশে বৈধ তাইতো ?


দ্রুত জনমানুষের কাছে জনপ্রিয়তার কারণে কিছু কিছু দেশের সরকার ও কোম্পানিগুলি বিটকয়েন কে লেনদেন ও পণ্য কেনা বেচায় গ্রহণ করা হচ্ছে | আপনি বিটকয়েন কে টাকার মতো ব্যবহার করে জিনিসপত্র কিনতে পারেন এটা নির্ভর করে আপনি কোন দেশ বা অঞ্চলে বসবাস করছে |

এল সালভাদর : এটি প্রথম দেশ যা বিটকয়েন কে পণ্য আদান-প্রদানে টাকার জায়গায় ব্যবহারের অনুমোদন ঘোষিত করেন । তখনকার রাষ্ট্রপতি নায়েব বুকেল বিটকয়েন কে বাণিজ্য ও লেনদেনে ব্যবহারে আইনি স্বীকৃতি ঘোষিত করেন। এল সালভাদর দেশে বিটকয়েন পুরোপুরি বৈধ

কানাডা : বিটকয়েন কে লেনদেন কার্যকলাপে পরিষেবা অর্থ হিসাবে ব্যবহার করে। এই দেশে বিটকয়েনের ATM মেশিন কিছু কিছু জায়গায় দেখতে পাবেন তা থেকে বিটকয়েনের বদলে টাকা তুলতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়া : বিটকয়েনের মাধ্যমে পণ্য কেনাবেচায় উপহার হিসাবে অর্থের পরিবর্তে বিটকয়েন কে ব্যবহার করা হয়। অস্ট্রেলিয়ার ট্রাক্সেশন অফিসে লেনদেনের সমস্ত নথিপত্র গুলিকে জমা করা হয়।

ইউনাইটেড স্টেট : এই দেশে ডলার পরিবর্তে লেনদেনে কার্যকলাপে বিটকয়েন কে মুদ্রার মতো ব্যবহার করতে পারেন। এই সঙ্গে ইউনাইটেড স্টেট ফাইন্যান্সিয়াল ক্রাইম এনফোর্সমেন্ট নেটওয়ার্ক ২০১৩ সালে স্থাপন করা হয়। কোন গ্রুপ বা প্রতিষ্ঠান থেকে বিটকয়েনের সন্দেহজনক লেনদেনের কার্যকলাপ লক্ষ্য করলে সেই সম্পর্কে নির্দেশ দেবে |


বাকি দেশ যেখানে বিটকয়েন বৈধ :


দ্য ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন , ফ্রান্স, ডেনমার্ক, জার্মানি, আইসল্যান্ড, স্পেন, মেক্সিকো,ইউনাইটেড কিংডম এবং জাপান |

বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে


সংক্ষেপে বিটকয়েন কিভাবে কাজ করে সোজা বাংলায় জানবো
বিটকয়েন হলো একটি ডিজিটাল মুদ্রা যা অনলাইন এর মাধ্যমে কার্যকলাপের ব্যবহার করতে পারি। বিটকয়েন Buy ও Sell করার জন্য আপনার কম্পিউটার বা স্মার্টফোন এ ডিজিটাল ওয়ালেট অ্যাপ্লিকেশন থাকা প্রয়োজন |


সেইখানে এই ট্রানজেশন প্রক্রিয়াকে সম্পূর্ণ করে অনেকগুলি কম্পিউটারের রোবট যাদের আমরা বিটকয়েন মাইনার বলে থাকি এর আদান প্রদানে রেকর্ড গুলিকে সম্পূর্ণ পাবলিক ব্লকচেইন নেটওয়ার্ক এর তালিকা জমা থাকে যে কেউ এই ট্রানজাকশন গুলিকে দেখতে পারেন বিটকয়েন পুরোপুরি ব্লকচেইন প্রনালির দ্বারা কাজ করে এর কপি তৈরি করা অথবা, লেনদেনে কারসাজি করা অসম্ভব |


বিটকয়েন কি ভারত-বাংলাদেশে বৈধ ? ( Bitcoin legal in Bangladesh )


ভারতে ( Bitcoin legal in india )

ক্রিপ্টোকারেন্সি কে পুরোপুরি বৈধ করা হয়নি কিন্তু কেনা ও সেল করতে পারবেন তার উপর 30% ট্যাক্স জারি করা হয়েছে |

বাংলাদেশ

বিটকয়েন বাংলাদশের টাকায় বিনিয়োগ করা পুরোপুরি অবৈধ বলে ঘোষিত করা হয়েছে। আপনি সরকারের নজরে বৈধ ভাবে বিনিয়োগ করতে পারেন তার কিছু টিপস তোমাদের সাথে শেয়ার করব

ক্রিপ্টো এয়ারড্রপ গুলিতে join করে ক্রিপ্টোকারেন্সি পেতে পারেন অথবা, চেনা পরিচিত কেউ বিদেশে থাকলে তাকে আপনার ওয়ালেট এড্রেসে বিটকয়েন ট্রানস্ফার করে দিতে বলতে পারেন এর ফলে বৈধভাবে বাংলাদেশে বিটকয়েন দিয়ে ট্রেড করতে পারেন |


বিটকয়েনর সুবিধা ও অসুবিধা


সুবিধা :

  • ইন্টারন্যাশনাল ট্রানজেকশন ব্যাংকের মাধ্যমে করলে অনেক ঝামেলায় পড়ি। এই কাজকে মোবাইল দিয়ে বিটকয়েনের মাধ্যমে অনেক সহজেই করতে পারি |
  • অনেক মানুষে লেনদেনে সরকারকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য বিটকয়েন কে অবৈধ কাজে ব্যবহার করে থাকে |
  • সত্যি বলতে বিটকয়েন Blockchain টেকনোলজি ভিক্তিতে কাজ করে এতে Fraud হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম |

অসুবিধা :

  • বিটকয়েনের উপর কোন গভর্মেন্ট বা কোন এজেন্সির হাত না থাকায় কোন প্রকার জালিয়াতির শিকার হলে বিটকয়েন গুলিকে ফিরিয়ে পাওয়া মুশকিল আছে |
  • বিটকয়েন কে আমরা ডিজিটাল ওয়ালেট স্টোর করে রাখি এই ডিজিটাল ওয়ালেট গুলিকে হ্যাক করা যেতে পারে |
  • আপনার বিটকয়েন ওয়ালেটর পাসওয়ার্ড হারিয়ে ফেললে তাহলে সেটিকে ফেরত পাওয়া মুশকিল এভাবে প্রায় ২৫% বিটকয়েন হারিয়ে গেছে |

কিভাবে বিটকয়েন কে Buy করবো


ক্রিপ্টোকারেন্সীতে বিনিয়োগ করা জন্য ভারতের ইনভেস্টদের জন্য অনেক সহজে বিটকয়েন কিনতে ও বিক্রি করতে পারবেন এই অ্যাপ্লিকেশন গুলির মাধ্যমে

  1. CoinDCX
  2. Wazirx
  3. Binance
  4. INDmoney
  5. Coinswitch kuber

Bitcoin Scammer List In India 2022

  • Pump and Dump
  • Pig Butchering
  • Hacking” Crypto Scam
  • Rug Pull -Scam
  • PhishingScam
  • Airdrop -Scam
  • “Advertisement” Crypto Scam

বিটকয়েন Scammer টেলিগ্রাম


প্রতারকরা অরিজিনাল টেলিগ্রাম চ্যানেল গুলির নামে ডুবলিকেট চ্যানেল তৈরি করে থাকে, সার্চ করলে একই নামে বহু চ্যানেল বা গ্রুপ দেখতে পাবেন কিছু কিছু ব্যক্তি ভুল চ্যানেলগুলিতে Join করে ফেলে |

এই সব চ্যানেলগুলিতে Fake বিটকয়েন ও ক্রিপ্টোকারেন্সি গুলিকে প্রমোট করা হয় | এই থেকে বাঁচার জন্য অরিজিনাল ওয়েবসাইট, ইউটিউব চ্যানেল গুলিতে দেওয়া লিংক এর মাধ্যমে Join করুন |

নকল ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং ক্রিপ্টো ওয়েবসাইট গুলি কে কি ভাবে চিহ্নিত করবেন ?

কিভাবে বিটকয়েন থেকে আয় করা যায়


কিছু জনপ্রিয় উপায় যা সবার জানা, তিনটি উপায়ে বিটকয়েন থেকে আয় করা সম্ভব .


প্রথম মাধ্যম : আপনি কিছু পরিমাণ অর্থ দিয়ে বিটকয়েন ইনভেস্ট করে রাখতে পারেন | ভবিষ্যতে ভালো মুনাফা দেখলে সেল করে টাকা আয় করে নিতে পারেন |


দ্বিতীয় উপায় হল : আপনার যে কোনো অনলাইন ব্যবসায় টাকার পরিবর্তে বিটকয়েন কে পেমেন্ট হিসাবে নিতে পারেন | পরে বিটকয়েনের মূল্য বেড়ে গেলে আপনার ওয়ালেট এ জমা রাখা বিটকয়েন গুলিকে বিক্রি করে ভালো মুনাফা করা সম্ভব |


তৃতীয় মাধ্যম : বিটকয়েন মাইনিং করার জন্য অনেক অর্থের প্রয়োজন হয় | বিটকয়েন মাইনিং করার জন্য কম্পিউটারের বিষয়ে জ্ঞান থাকা প্রয়োজন বহু মানুষ বিটকয়েন মাইনিং করে লক্ষ লক্ষ টাকা উপার্জন করছেন |

চলুন, বিটকয়েন মাইনিং কি পুরো ব্যাপারটা জেনেনিয়

বিটকয়েন মাইনিং কি


Bitcoin Mining কথাটি অনেকেই শুনেছেন এটাকে অনেকেই করতে চায় এটি করার জন্য আপনার Crypto Mining ব্যাপারে ট্রেনিং অথবা ভালো জ্ঞান অবশ্যই থাকতে হবে | সেই সঙ্গে প্রয়োজন একটি কম্পিউটার ও উচ্চ মানের প্রসেসর এবং উন্নত মানের গ্রাফিক্স কার্ড থাকতে হবে সবার পক্ষে করা অসম্ভব |


বিটকয়েন কে বাই-সেল অথবা লেনদেনর কাজটিকে সম্পন্ন করে তাদের আমরা মাইনার বলে থাকি |


বিটকয়েনের মাধ্যমে কোনো ট্রানজাকশন করা হলে মাইনার সেই ট্রানজাকশন গুলিকে চেক করে দেখে নেয় সঠিক কিনা (কোনরকম জালিয়াতি হচ্ছে কিনা ) তারপর প্রক্রিয়াটিকে কমপ্লিট করা হয় |

বিটকয়েনের লেনদেনের প্রক্রিয়াটি সঠিকভাবে করার জন্য মজুরি হিসাবে মাইনারদের বিটকয়েনর ছোট একটি ভাগ ( সাতোশি ) পেয়ে থাকেন |
এইভাবে বহু বিটকয়েন মাইন করে অনেক পরিমান বিটকয়েন ওয়ালেটে জমা হয় সেই বিটকয়েন গুলিকে বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করে থাকে |

ক্রিপ্টোকারেন্সি কি ?

*আজকে আমরা কি কি শিখলাম*

বিটকয়েন সম্বন্দে সূম্পর্ণ পুরো ব্যাপার নিয়ে আলোচনা করলাম, কিছু হয়তো বাকি থাকেতে পারে | কোনো কিছু তোমাদের প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন |

Leave a Comment