Pallabi Dey Death-রহস্যের ব্যাপারে চাঞ্চল্যকর তথ্য সামনে এসেছে

Actres Pallabi Dey Death -এর বেপারে বেশ কিছু সংবাদ মাধ্যম থেকে জানানো যাচ্ছে যে – পল্লবী দের পরিবারের দাবি পল্লবী কখনোই আত্মহত্যা করতে পারেনা। “পল্লবীকে খুন করা হয়েছে” তার বাবার দাবি। আর অভিনেত্রীর পরিবারের সন্দেহের তালিকায় নাম রয়েছে Pallabi Dey Boyfriend Sagnik Chakraborti -র।

Pallabi Dey and Sagnik Chakraborti Case

পল্লবীর পরিবারের দাবি , Pallabi Day Bf Sagnik তাকে খুব মারধর করতো আর সাগ্নিক চক্রবর্তী অন্য এক জনের সাথে registry marriage করে ছিলেন।
এই রেজিস্ট্রির সম্পর্কে পল্লবী কিছুই জানতেন না, অন্যদিকে সাগ্নিক পল্লবী কে না জানিয়ে দীর্ঘদিন live in relationship ছিলেন। যখন পল্লবী Flat থাকতেন না তখন অন্য মেয়েটির সাথে ওই ফ্ল্যাটে সময় কাটাতেন Sagnik Chakraborti।যদিও এই সমস্ত বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষ।

সাগ্নিককে আটক করেছে গড়ফা থানার পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে Pallavi Dey suicide -এর ব্যাপারে। এই মুহূর্তে সাগ্নিকের বয়ান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

পল্লবীর বাবা জানিয়েছেন মাস ছয়েক আগে আমরা জানতে পারি যে সাগ্নিকের রেজিস্ট্রি ম্যারেজ হয়ে গেছে। সেটা সাগ্নিকের মাও জানতেন। ওই বাড়িতে সেই মেয়ের যাতায়াত ছিল অথচ আমার মেয়ের কাছে সবকিছু লুকিয়ে যায়। সেটা জানতে পারার পর আমরা সাগ্নিকের সাথে কথা বলি, সাগ্নিক বলেছিল “divorce file” করেছি আমাদের ডিভোর্স হয়ে যাবে, তারপর পল্লবী কে বিয়ে করবো”।

অন্যদিকে সাগ্নিকের মায়ের বক্তব্য – এই লিভন ব্যাপারটা আমরা একদমই পছন্দ করতাম না। সম্পর্ক আছে প্রেম করছে ঠিক আছে কিন্তু এইভাবে লিভ ইন এ থাকাটা আমাদের একেবারেই পছন্দ ছিল না। কিন্তু মেয়ের বাড়ি থেকে সম্পূর্ণ সমর্থন ছিল এই live in -এ। পল্লবীর বাড়ির সবাই ওই ফ্ল্যাটটিতে যাতায়াত করতেন। একটা পরিবারের মত নিয়ে থাকতেন। কিন্তু এই ঘটনাটা কেন হল বুঝতে পারছি না। সাগ্নিক কেউ কিছু জিজ্ঞাসা করতে পারছিনা যেহেতু ও এই মুহূর্তে পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

এইদিকে পল্লবীর বাবা বলছেন সাগ্নিক গত কয়েকদিন ধরেই মেয়েকে মারধর করতো। সেই কথা জানতে পেরেছিলেন বলে জানা গেছে।
তিনি আরো জানিয়েছেন, সাগ্নিক আইনতভাবে বিবাহিত বিয়ের কথা লুকিয়ে পল্লবীর সাথে প্রেম করেছিলে। এছাড়া পল্লবীর বাবা আরও দাবি করেছেন, পল্লবী যখন অভিনয়ের জন্য বাইরে যেত সেইসময় ফ্ল্যাটে আসতো পল্লবীর এক বান্ধবী। ওই বান্ধবীর সাথে মেলামেশা মোটেও ভাল হবেন নিতেননা পল্লবী। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে বারবার ঝামেলা হতো।

একটি সংবাদমাধ্যমকে পল্লবীর বাবা জানিয়েছেন আমার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না, আমি নব্বই শতাংশ নিশ্চিত যে আমার মেয়েকে খুন করা হয়েছে।

অন্যদিকে সাগ্নিকের বাবা বলছেন আমার মনে হচ্ছে ওই সুসাইড করেছে। দুজনেই ভীষণ মাথা গরম করতে। ওদের মধ্যে ঝামেলা হতো শুনেছি,কিন্তু মেয়েটির পরিবারের সাথে ছেলের ভালো সম্পর্ক ছিল কিন্তু এ বিষয়ে বেশি কিছু বলতে পারব না,এই কথাই জানিয়েছেন সাগ্নিকের বাবা।

কিন্তু এখনো পর্যন্ত পুলিশ রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে আত্ম হত্যা বলে এটাকে মনে করা হচ্ছে। রবিবার যে পুলিশ রিপোর্ট সামনে এসেছে তা কাঁটাপুকুর মর্গে পল্লবীতে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে পুলিশ প্রাথমিক অনুমান যে আত্মহত্যা করেছেন পল্লবী। আত্মহত্যা করে থাকলে তার পেছনে কোনো প্ররোচনা ছিল কিনা সেটা খোঁজার চেষ্টা করছে Garpha থানার পুলিশ।
দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে সাগ্নিক চ্যাটার্জিকে পল্লবী দের মৃত্যুর আসল রহস্য কিন্তু এখনও সবার কাছে অজানা। আগামী দিনে পুলিশের তদন্ত এগুলি সব কিছু জানা যাবে।

Conclusion

Pallabi Dey Death রহস্যের ব্যাপারে সমস্ত খবরের আপডেট সবার আগে পাওয়ার জন্য আমাদের এই ওয়েবসাইটটি Crypro Bangla ফলো করতে ভুলবেন না।

Leave a Comment